মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

পূর্ববতী মামলার রায়

মাননীয়,

            বিজ্ঞ চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালত চট্টগ্রাম।

          সুত্রঃ ফৌজদারী মিচ মামলা নং- ৮৪/২০১৪ সীতাকুন্ড

                 সি আর মামলা নং- ৯০/২০১২ সীতাকুন্ড

                      মতামত সহ নথি প্রেরন প্রসঙ্গে

        সুত্রে উল্লেখিত সি আর মামলা নং- ৯০/২০১২ সীতাকুন্ড গত ১০/০৫/২০১৪ ইং- তারিখে সীতাকুন্ড, মডেল থানার মাধ্যমে বিজ্ঞ আদালতের ০৯/০৪/২০১২ইং- তারিখের আদেশ মূলে গ্রহন করিয়া মামলার বাদীনী ও প্রতিপক্ষ গংদের ১ম ধার্য্য তারিখ ১৫/০৫/২০১৪ তারিখে গ্রাম আদালতে হাজির হওয়ার জন্য সমন জারি করি। ১৫/০৫/২০১৪ ইং ১ম ধার্য্য তারিখে বাদিনী হাজিরা দাখিল ক্রমে হাজির হয়। প্রতিপক্ষ গংদের মধ্যে ৩নং বিবাদী মোঃ তারেক/৬নং বিবাদী সেকান্দর ৪নং বিবাদী ছিদ্দিক আহম্মদ ও ৭ নং বিবাদী মোঃ হারুন হাজিরা দাখিল ক্রমে গ্রাম আদালতে হাজিরা হয়।১নং/২নং/৫নং বিবাদী যথাক্রমে পিনকু ইউনুস আলম বাদশা গড় হাজিরা মামলা বিজ্ঞ আদালতের আদেশে চুড়ান্ত নিষ্পত্তি জন্য পুনরায় ২৯/০৫/২০১৪ইং তারিখে দিন ধার্য হয়। কিন্তু ২৯/০৫/২০১৪ ধার্য্য তারিখে বাদিনী হাজির হইলেও বিবাদী পক্ষ গড় হাজির থাকে। পরবর্তী তারিখ ০৫/০৬/২০১৪ ধার্য হয়।

০৫-০৬-২০১৪ ইং ধার্য তারিখের দিন বাদিনী ফৌজদারী মিচ মামলা নং- ৮৪/২০১৪ তারিখে মতামত সহ নথি প্রেরনের আদেশ সম্বলিত কপি গ্রাম আদালতে জমা দেন। যাহাতে ০৪/০৬/২০১৪ তারিখে বিজ্ঞ আদালতের আদেশ মতামত সহ নথি প্রেরনের নির্দেশ হয়।

বিজ্ঞ আদালতের ফৌজদারী মিচ মামলা নং ৮৪/২০১৪(সীতাকুন্ড) গ্রাম্য আদালত অধ্যাদেশের ১৬(১) ধারায় আবেদন বিস্তারিত দেখিলাম। বাদিনীর আবেদনে ১ হইতে ৪নং দফা বিগত সি আর মামলা নং ৯০/২০১২ একই আবেদন পুনঃব্যক্ত করা হইয়াছে।

বাদিনীর ৮৪/২০১৪ মিচ মামলা নং ৫নং ধারায় বিবাদীগনকে ৪ বার নোটিশ দেওয়ার পর ১জন বিবাদী হাজির হইলেও কোন প্রতিনিধি নিয়োগ না করা গ্রাম আদালত গ্রহন করা হয়নি বক্তব্য সঠিক নয়। নথি দৃষ্টে দেখা যায় বিগত ১৫/০৫/২০১৪ ইং তারিখে বাদিনী ও প্রতিপক্ষ গন গ্রাম আদালত আইন নির্বাচনের অঙ্গিকার ফরমে প্রতিনিধি নিয়োগ করিয়া স্ব-স্ব পক্ষে দস্তখত করিয়াছে।

নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে মামলা নিষ্পত্তি করতে না পারা বক্তব্য সঠিক নয়। গ্রাম আদালত অধ্যাদেশ ২০১৩ এর বিধান অনুসারে বাদীকে মৌখিক ভাবে উক্ত আদালতে আশ্রয়নের পরামর্শ প্রদান সঠিক নয়। গ্রাম আদালতের বিচার পাইবেনা বলিয়া নিশ্চিত হওয়ার কোন কারন উদ্ভব হয় নাই। গ্রাম আদালত বিজ্ঞ আদালতের নির্দেশে মামলা গ্রহন করিয়া কোন কালক্ষেপন না করিয়া মাত্র ২টি ধার্য তারিখের মধ্যে বাদিনীর পুনরায় ফৌজদারী মিচ মামলা দায়ের এর কারনে মামলা বিচার নিষ্পত্তি করা সম্ভব হয় নাই। যেহেতু বিজ্ঞ আদালত মতামত সহ নথি প্রেরনের আদেশ হইয়াছে। বিজ্ঞ আদালতের সদয় অবগতির জন্য জানাইতেছি যে,অত্র মামলার বাদিনী প্রতিপক্ষ (বিবাদী) আলম বাদশার স্ত্রী লাকি আকতার জখম প্রাপ্ত হইয়া সীতাকুন্ড থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। যাহার মামলা নং ১৩ তাং ১২/১১/২০১২ধারা১৪৩/৩২৩/৩২৫/৩০৭/৩৭৯/৪৪৭/৭২৭দন্ড বিধি মামলাটি তদন্ত শেষে  অভিযোগ পত্র দাখিল করা হয়। অভিযোগ পত্র নং-৩৭৭ তারিখ ১৭/১২/১০১১ ইং।

উপরে উল্লেখিত অত্র মামলার বাদিনীর বিরুদ্বে দায়ের করা মামলা এখন ও বিজ্ঞ আদালতে বিচারাধীন আছে। বাদিনীর মামলা গ্রাম আদালতে কেন নিষ্পত্তির জন্য পাটিয়েছেন উত্তেজিত হয়ে চলিয়া যায়। অতএব মহোদয়ের নির্দেশ মোতাবেক সংক্ষিপ্ত মতামতসহ নথি প্রেরন করিলাম। পরবর্তী আদেশের মর্জি হয়।

     সংযুক্ত

১। মুলনথি (ফিরিস্তি সহ) ৮৩ পাতা